ঢাকা , বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ভোগান্তিতে সাধারণ মানুষ পায়ে হেঁটে রওয়ানা

কাওরানবাজারে রেললাইনের ওপর শিক্ষার্থীরা, ঢাকার সঙ্গে সারাদেশের যোগাযোগ বন্ধ

কোটা নিয়ে চলমান আন্দোলনের ধারাবাহিকতায় আজ বুধবার (১০ জুলাই) রাজধানীর কাওরানবাজারে রেললাইন অবরোধ করে রেখেছে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা। এতে ঢাকার সঙ্গে সারাদেশের রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। একই সঙ্গে রিকশা, ভ্যান, মোটরসাইকেলসহ সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দিয়েছেন আন্দোলনকারীরা।

এদিন দুপুর ১টার দিকে কয়েকশ আন্দোলনকারী অবস্থান নেন কারওয়ানবাজার সংলগ্ন রেললাইনের ওপরে। এসময় তারা রেললাইনের দুই পাশে কাঠের স্লিপার দিয়ে রেললাইনের ওপরে বসে পড়েন, কেউ শুয়েও পড়েন। এতে বেলা ১১টার পর কমলাপুরের সঙ্গে পশ্চিম ও পূর্বাঞ্চলের রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়।

আন্দোলনে অংশ নেওয়া এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘আমাদের যৌক্তিক দাবির পক্ষে এসেছি। বেলা ১১টা থেকে রেললাইনের ওপরে অবস্থান নিয়েছি। কোন ধরনের যানবাহন চলাচল করতে দেওয়া হচ্ছে না। আমাদের দাবির পক্ষে আমরা সকাল থেকে সন্ধা পর্যন্ত বসে থাকব।’

এসময় অন্যান্যরা নানা ধরনের স্লোগান দিতে থাকেন।

অন্যদিকে সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকায় ভোগান্তিতে পড়তে হয় সাধারণ মানুষকে। অনেকে পায়ে হেঁটে স্ব স্ব গন্তব্যের উদ্দেশ্য রওয়ানা হন।

ভোগান্তিতে সাধারণ মানুষ পায়ে হেঁটে রওয়ানা

কাওরানবাজারে রেললাইনের ওপর শিক্ষার্থীরা, ঢাকার সঙ্গে সারাদেশের যোগাযোগ বন্ধ

আপডেট সময় ০২:৪৮:১৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪

কোটা নিয়ে চলমান আন্দোলনের ধারাবাহিকতায় আজ বুধবার (১০ জুলাই) রাজধানীর কাওরানবাজারে রেললাইন অবরোধ করে রেখেছে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা। এতে ঢাকার সঙ্গে সারাদেশের রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। একই সঙ্গে রিকশা, ভ্যান, মোটরসাইকেলসহ সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দিয়েছেন আন্দোলনকারীরা।

এদিন দুপুর ১টার দিকে কয়েকশ আন্দোলনকারী অবস্থান নেন কারওয়ানবাজার সংলগ্ন রেললাইনের ওপরে। এসময় তারা রেললাইনের দুই পাশে কাঠের স্লিপার দিয়ে রেললাইনের ওপরে বসে পড়েন, কেউ শুয়েও পড়েন। এতে বেলা ১১টার পর কমলাপুরের সঙ্গে পশ্চিম ও পূর্বাঞ্চলের রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়।

আন্দোলনে অংশ নেওয়া এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘আমাদের যৌক্তিক দাবির পক্ষে এসেছি। বেলা ১১টা থেকে রেললাইনের ওপরে অবস্থান নিয়েছি। কোন ধরনের যানবাহন চলাচল করতে দেওয়া হচ্ছে না। আমাদের দাবির পক্ষে আমরা সকাল থেকে সন্ধা পর্যন্ত বসে থাকব।’

এসময় অন্যান্যরা নানা ধরনের স্লোগান দিতে থাকেন।

অন্যদিকে সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকায় ভোগান্তিতে পড়তে হয় সাধারণ মানুষকে। অনেকে পায়ে হেঁটে স্ব স্ব গন্তব্যের উদ্দেশ্য রওয়ানা হন।