ঢাকা , বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অষ্টম মহাদেশের খোঁজ পেলেন বিজ্ঞানীরা

  • আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
  • আপডেট সময় ০৭:৫০:২৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • ১৫২ বার পড়া হয়েছে

জিল্যান্ডিয়া মহাদেশের মানচিত্র। ছবি: এক্স থেকে নেওয়া

প্রায় ৩৭৫ বছর পর পানির নিচে লুকিয়ে থাকা একটি মহাদেশ আবিষ্কার করেছেন ভূ-বিজ্ঞানীরা। মহাদেশটির নাম জিল্যান্ডিয়া। বিজ্ঞানভিত্তিক বার্তা সংস্থা ফিস ডট ওআরজির বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি। 

এতে বলা হয়, সমুদ্রতলে ম্যাপিং, পাথরের নমুনা বিশ্লেষণ ও টেকটোনিক প্লেটের ভূতাত্ত্বিক পরীক্ষার পর এ মহাদেশটির মানচিত্র প্রকাশ করেন বিজ্ঞানীরা।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, জিল্যান্ডিয়া ১ দশমিক ৮৯ মিলিয়ন বর্গ মাইল আয়তনের একটি বিশাল মহাদেশ। এটি আফ্রিকার দেশ মাদাগাস্কারের থেকে প্রায় ছয় গুণ বড়। অস্ট্রেলিয়ার দক্ষিণ-পূর্ব দিকের দক্ষিণ-পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরে অবস্থিত এ মহাদেশটি।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, নতুন মহাদেশটির প্রায় ৯৪ শতাংশই পানির নিচে। এখানে নিউজিল্যান্ডের মতো কয়েকটি দ্বীপ রয়েছে।জিল্যান্ড মহাদেশ আবিষ্কারের সঙ্গে জড়িত থাকা নিউজিল্যান্ডের ক্রাউন রিসার্চ ইনস্টিটিউট জিএনএস সায়েন্সের ভূ-বিজ্ঞানী অ্যান্ডি তুলোচ বলেন, একটি স্পষ্ট বিষয় উন্মোচিত হতে কখনো কখনো যে অনেক সময় নিতে পারে, জিল্যান্ডিয়ার আবিষ্কার তার একটি উদাহরণ।

গবেষকরা বলছেন, জিল্যান্ডিয়া প্রায় ৫৫ কোটি বছর আগে গন্ডোয়ানা নামের একটি বৃহৎ মহাদেশের অংশ ছিল। গন্ডোয়ানা থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার পর এটি পানির নিচে তলিয়ে যায়।

অষ্টম মহাদেশের খোঁজ পেলেন বিজ্ঞানীরা

আপডেট সময় ০৭:৫০:২৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩

প্রায় ৩৭৫ বছর পর পানির নিচে লুকিয়ে থাকা একটি মহাদেশ আবিষ্কার করেছেন ভূ-বিজ্ঞানীরা। মহাদেশটির নাম জিল্যান্ডিয়া। বিজ্ঞানভিত্তিক বার্তা সংস্থা ফিস ডট ওআরজির বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি। 

এতে বলা হয়, সমুদ্রতলে ম্যাপিং, পাথরের নমুনা বিশ্লেষণ ও টেকটোনিক প্লেটের ভূতাত্ত্বিক পরীক্ষার পর এ মহাদেশটির মানচিত্র প্রকাশ করেন বিজ্ঞানীরা।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, জিল্যান্ডিয়া ১ দশমিক ৮৯ মিলিয়ন বর্গ মাইল আয়তনের একটি বিশাল মহাদেশ। এটি আফ্রিকার দেশ মাদাগাস্কারের থেকে প্রায় ছয় গুণ বড়। অস্ট্রেলিয়ার দক্ষিণ-পূর্ব দিকের দক্ষিণ-পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরে অবস্থিত এ মহাদেশটি।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, নতুন মহাদেশটির প্রায় ৯৪ শতাংশই পানির নিচে। এখানে নিউজিল্যান্ডের মতো কয়েকটি দ্বীপ রয়েছে।জিল্যান্ড মহাদেশ আবিষ্কারের সঙ্গে জড়িত থাকা নিউজিল্যান্ডের ক্রাউন রিসার্চ ইনস্টিটিউট জিএনএস সায়েন্সের ভূ-বিজ্ঞানী অ্যান্ডি তুলোচ বলেন, একটি স্পষ্ট বিষয় উন্মোচিত হতে কখনো কখনো যে অনেক সময় নিতে পারে, জিল্যান্ডিয়ার আবিষ্কার তার একটি উদাহরণ।

গবেষকরা বলছেন, জিল্যান্ডিয়া প্রায় ৫৫ কোটি বছর আগে গন্ডোয়ানা নামের একটি বৃহৎ মহাদেশের অংশ ছিল। গন্ডোয়ানা থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার পর এটি পানির নিচে তলিয়ে যায়।