ঢাকা , মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঙালির হাজার বছরের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি সম্প্রীতির এ বন্ধনকে অটুট রাখতে হবে ॥মৃণাল কান্তি দাস

হেলাল উদ্দিন,মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি: মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস বলেছেন, সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির বন্ধনকে অটুট রাখতে হবে। বাঙালির হাজার বছরের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি হলো সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির সংস্কৃতি। এই গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহ্যকে সমুন্নত রাখতে হবে। বৃহস্পতিবার মিরকাদিম পৌরসভার কমলাঘাট হরিসভা প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত বিশ্বশান্তি ও মঙ্গল কামনায় ৭২তম বার্ষিকী মহোৎসব ৫৬ প্রহরব্যাপী শ্রীমদ্ভাবগত পাঠ ও শ্রী শ্রী তারকব্রহ্ম মহানাম যজ্ঞানুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। এ সময় স্বগীয় প্রভাত কালুকদার ও প্রশান্ত তালুকদার স্মরণে বিশেষ প্রার্থনা হয়। বিপুল সংখ্যক ভক্ত সাধারণ উপস্থিত ছিলেন । এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মিরকাদিম পৌরসভার মেয়র হাজী আব্দুস সালাম, কমলাঘাট হরিসভার সভাপতি শ্রী গোপাল চন্দ্র তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক শ্রী নকুল চন্দ্ৰ পাল, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আল মাহমুদ বাবু, শ্রমিক লীগ নেতা আবুল কাশেম, পৌর কাউন্সিলর আওলাদ হোসেন, দ্বীন ইসলাম, সোহেল মিয়া, আক্তার হোসেন প্রমুখ। অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপি বলেন, বাংলাদেশ সম্প্রীতির দেশ। এখানে ঈদ-পূজাসহ বিভিন্ন ধর্মীয় উৎসব সবাই সমানভাবে ভাগাভাগি করে নেয়। আমরা উদার সাম্প্রদায়িক ও সম্প্রীতির সংস্কৃতিতে বিশ্বাসী। বাংলাদেশে সকল ধর্মের মানুষের সমান অধিকার ও সমমর্যাদা রয়েছে। শ্রেণি-বর্ণ, ধনী-গরীব, রাজা-প্রজা সকলের সমান অধিকার। সকল ধর্ম ও সম্প্রদায়ের মানুষের নিজস্ব ধর্ম পালনের পূর্ণ স্বাধীনতা রয়েছে । তিনি বলেন, সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির বন্ধনকে অটুট রাখতে হবে। সমাজে সৌহার্দ্য, সাম্য, শান্তি ও কল্যাণ প্রতিষ্ঠায় আত্ম-সংযম ও আত্মত্যাগের মানসিকতায় উজ্জীবিত হতে হবে। ধর্ম, বর্ণ, শ্রেণি পেশা নির্বিশেষে সকল মানুষের কল্যাণে কাজ করতে হবে। তিনি আরও বলেন, বাঙালির হাজার বছরের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি হলো সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির সংস্কৃতি। প্রতিক্রিয়াশীলদের ষড়যন্ত্র প্ররোচনায় সংঘটিত কয়েকটি ঘটনা ব্যতীত বাঙালি জাতির ইতিহাস মিলনের ইতিহাস— ভ্রাতৃত্বের ইতিহাস ।

ঙালির হাজার বছরের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি সম্প্রীতির এ বন্ধনকে অটুট রাখতে হবে ॥মৃণাল কান্তি দাস

আপডেট সময় ১১:১৭:৫২ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মার্চ ২০২৩

হেলাল উদ্দিন,মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি: মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস বলেছেন, সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির বন্ধনকে অটুট রাখতে হবে। বাঙালির হাজার বছরের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি হলো সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির সংস্কৃতি। এই গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহ্যকে সমুন্নত রাখতে হবে। বৃহস্পতিবার মিরকাদিম পৌরসভার কমলাঘাট হরিসভা প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত বিশ্বশান্তি ও মঙ্গল কামনায় ৭২তম বার্ষিকী মহোৎসব ৫৬ প্রহরব্যাপী শ্রীমদ্ভাবগত পাঠ ও শ্রী শ্রী তারকব্রহ্ম মহানাম যজ্ঞানুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। এ সময় স্বগীয় প্রভাত কালুকদার ও প্রশান্ত তালুকদার স্মরণে বিশেষ প্রার্থনা হয়। বিপুল সংখ্যক ভক্ত সাধারণ উপস্থিত ছিলেন । এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মিরকাদিম পৌরসভার মেয়র হাজী আব্দুস সালাম, কমলাঘাট হরিসভার সভাপতি শ্রী গোপাল চন্দ্র তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক শ্রী নকুল চন্দ্ৰ পাল, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আল মাহমুদ বাবু, শ্রমিক লীগ নেতা আবুল কাশেম, পৌর কাউন্সিলর আওলাদ হোসেন, দ্বীন ইসলাম, সোহেল মিয়া, আক্তার হোসেন প্রমুখ। অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপি বলেন, বাংলাদেশ সম্প্রীতির দেশ। এখানে ঈদ-পূজাসহ বিভিন্ন ধর্মীয় উৎসব সবাই সমানভাবে ভাগাভাগি করে নেয়। আমরা উদার সাম্প্রদায়িক ও সম্প্রীতির সংস্কৃতিতে বিশ্বাসী। বাংলাদেশে সকল ধর্মের মানুষের সমান অধিকার ও সমমর্যাদা রয়েছে। শ্রেণি-বর্ণ, ধনী-গরীব, রাজা-প্রজা সকলের সমান অধিকার। সকল ধর্ম ও সম্প্রদায়ের মানুষের নিজস্ব ধর্ম পালনের পূর্ণ স্বাধীনতা রয়েছে । তিনি বলেন, সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির বন্ধনকে অটুট রাখতে হবে। সমাজে সৌহার্দ্য, সাম্য, শান্তি ও কল্যাণ প্রতিষ্ঠায় আত্ম-সংযম ও আত্মত্যাগের মানসিকতায় উজ্জীবিত হতে হবে। ধর্ম, বর্ণ, শ্রেণি পেশা নির্বিশেষে সকল মানুষের কল্যাণে কাজ করতে হবে। তিনি আরও বলেন, বাঙালির হাজার বছরের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি হলো সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির সংস্কৃতি। প্রতিক্রিয়াশীলদের ষড়যন্ত্র প্ররোচনায় সংঘটিত কয়েকটি ঘটনা ব্যতীত বাঙালি জাতির ইতিহাস মিলনের ইতিহাস— ভ্রাতৃত্বের ইতিহাস ।